ফেসবুক আইডি, পেইজ ও এড একাউন্ট ডিজেবল /রেস্ট্রিকশন হওয়ার কারণ এবং সমাধান

ফেসবুক আইডি রেস্ট্রিকশন, পেইজ রেস্ট্রিকশন অথবা এড একাউন্ট ডিজেবল হওয়ার কারণে থেমে আছে ব্যবসা, তবে জানা নেই কি কারণে এ ধরনের সমস্যা হচ্ছে ? কি বা হবে এর সমাধান? 

 

যে সব কারণে এ ধরণের সমস্যা হয়ে থাকেঃ

 

ফেসবুক থেকে একটি এড ম্যানেজার ব্লক করার পরে নতুন এড ম্যানেজার খুললে

স্বল্প সময়ের মধ্যে অনেক বেশি রিজেক্টেড এড ক্রিয়েট / সাবমিট করলে

পেইজের সকল এডমিন এর অথেন্টিক ফেসবুক আইডি না থাকলে

একাধিক আইডি থেকে রিপোর্ট করা হলে

✅ পেমেন্ট তথ্যাদি এক দেশের হলেও বিলিং এক্টিভিটি অন্য দেশ থেকে হলে

প্রক্সি দিয়ে এড ম্যানেজার এ প্রবেশ করলে

✅ কোন পেইজ এডমিন ফেসবুক Community Standards না মানলে

পেইজের পোস্ট কন্টেন্ট এর মাধ্যম পেইজ ফলোয়ার/লাইকারদের বিভ্রান্তিকর তথ্য দিলে

পেইজের কন্টেন্ট ফেসবুক এর Hate speech policies এর বিরোধী হলে

একাধিকবার ফেসবুক Ads Policies ভায়োলেশন হলে

✅  আনসেটেল / পেন্ডিং সেটেলমেন্ট অথবা একাধিকবার পেমেন্ট ডিক্লাইন হলে

ব্র্যান্ডেড কন্টেন্ট উক্ত কোম্পানি না ট্যাগ করে উল্লেখ না করলে যে, তাদের সাথে পেইড পার্টনারশীপ এ অথবা স্পন্সরশীপ এ কাজ করা হচ্ছে।

✅  এড কন্টেন্ট এ পারসোনাল এট্রিবিউট  ফোকাস করলে 

✅  নিষিদ্ধ প্রোডাক্ট/ সার্ভিস এবং Sexually Suggestive কন্টেন্ট পোস্ট করলে

লো ফেসবুক পেইজ কোয়ালিটি এবং লো কোয়ালিটি র‍্যাঙ্কিং স্কোর এর ফেসবুক এবং ইন্সটাগ্রাম এড ক্রিয়েট এবং সাবমিশন।

কিভাবে হবে সমাধান?

উপরোক্ত বিষয়াদি মেনে এবং বুঝে ফেসবুক আইডি, পেইজ এবং এড একাউন্ট ব্যবহারের মাধ্যম আপনার পেইজ আইডি এবং একাউন্টকে সুরক্ষিত রাখতে পারেন। সুরক্ষিত রাখতে হলে যেসব ব্যাপার মানা আবশ্যক:

✔️ নিজস্ব এবং ইউনিক কন্টেন্ট ব্যবহার করা।

✔️ ফেসবুক এড পলিসি এবং কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড মেনে কন্টেন্ট প্রস্তুত করা এবং এড দেয়া।

✔️ ব্র্যান্ড এর পণ্য বা সেবা রিসেলিং এর সময় উক্ত ব্র্যান্ড এর অনুমতি নেয়া ব্র্যান্ডেড টুল ব্যবহার করে।

✔️ ফেসবুক এডমিন, এডভার্টাইজার,  এডিটর অথবা মডারেটর আইডি নিরাপদ রাখা এবং সন্দেহজনক অ্যাক্টিভিটি না করা।

✔️ সন্দেহজনক অথবা ম্যালওয়্যার সম্বলিত লিংক ক্লিক না করা

ফেসবুক এড একাউন্ট ডিজেবল হলে সাথে সাথেই নতুন আরেকটি এড একাউন্ট না খোলা।

✔️এড রিজেক্ট হলে রিজেকশন এর কারণ জানা এবং উপযুক্ত কারণে রিজেক্ট হলে রিভিউ না করা।

✔️ অপরিচিত কাউকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট অথবা মেসেজ পাঠানো থেকে বিরত থাকা।

✔️পেইজ হেলথ, পেইজ কোয়ালিটি, একাউন্ট ওভারভিউ ঘন ঘন রিভিউ করা এবং ঠিক রাখা। 

✔️ VPN অথবা প্রক্সি সাইট ব্যবহার থেকে বিরত থাকা।

✔️ উপযুক্ত কারণ ছাড়া অন্য পেইজ, আইডি অথবা এড রিপোর্ট করা হতে বিরত থাকা।

✔️ ফেসবুক আইডি তে নিজের নাম,ছবি, ফোন নম্বর এবং অন্যান্য তথ্যাদি সঠিকভাবে ব্যবহার করা।

সমাধান এর আগে সমস্যার কারণ গুলো না জেনে একই ভুল বার বার করলে চিরতরে আপনার পেইজ/আইডি অথবা এড একাউন্ট ব্যান করে দিতে পারে ফেসবুক। তাই সমস্যার কারণ জানা এবং সমাধান করে সঠিকভাবে মেনে চলাই হতে পারে এ ধরনের সমস্যা থেকে সুরক্ষিত রাখার একমাত্র উপায়।

📌 এ সংক্রান্ত সার্ভিস পেতে যোগাযোগ করুন ProAdman এর বিজনেস পেইজে 👇

ইনবক্স লিংকঃ

m.me/ProAdman

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin
Share on pinterest

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Testimonials
Subscribe

Integer posuere erat a ante venenatis dapibus posuere velit aliquet sites ulla vitae elit libero 

Subscribe to get 15% discount